National SME Award

জাতীয় এসএমই উদ্যোক্তা পুরস্কার


বিশ্বব্যাপী অর্থনীতির চালিকা শক্তি হিসেবে এসএমই’র গুরুত্ব অপরিসীম। পৃথিবীর শিল্পোন্নত দেশগুলোর অধিকাংশই এসএমই খাতের উন্নয়নের মাধ্যমে শিল্পোন্নয়নের যাত্রা শুরু করেছিল। এ খাতে যথাযথ গুরুত্ব দিয়ে সেসব দেশ আজ বিশ্বব্যাপী সমৃদ্ধ ও শিল্পোন্নত জাতির মর্যাদা পেয়েছে। শিল্পোন্নত দেশের অভিজ্ঞতার আলোকে বাংলাদেশের জনগণের জীবনমানের গুণগত পরিবর্তনের জন্য টেকসই এসএমই খাতের বিকাশ জরুরী।

দেশীয় শিল্প উদ্যোক্তাদের নিজ প্রচেষ্টায় দেশে অনেক ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। এসব প্রতিষ্ঠান কর্তৃক উৎপাদিত পণ্য দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও রপ্তানি হচ্ছে। অর্থনৈতিক উন্নয়নের ধারাকে সচল রাখার জন্য নারী ও পুরুষ শিল্প উদ্যোক্তাই তাদের সৃজনশীলতা ও দক্ষতার সাক্ষর রাখছেন। বাংলাদেশের সামগ্রিক অর্থনৈতিক উন্নয়নে এসএমই উদ্যোক্তার অবদান ও অংশগ্রহণকে সার্বজনীনভাবে স্বীকৃতি দেয়া এবং তাঁদেরকে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে এসএমই ফাউন্ডেশন জাতীয় পর্যায়ে নারী ও পুরুষ উদ্যোক্তা ক্যাটাগরিতে জাতীয় এসএমই উদ্যোক্তা পুরস্কার প্রদান করে থাকে।

জাতীয় এসএমই উদ্যোক্তা পুরস্কার এর মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে বাংলাদেশের বিভিন্ন শহর ও গ্রামে যে সকল এসএমই উদ্যোক্তা তাদের সৃজনশীলতা, দক্ষতা ও মননশীলতার মাধ্যমে বিভিন্ন ধরণের অর্থনৈতিক কর্মকান্ডের দ্বার উম্মোচন করে কর্মসংস্থান সৃষ্টি, উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি, আর্থিক নৈপূণ্য প্রদর্শন, পরিবেশবান্ধব পণ্য উৎপাদন ও সেবা প্রদান এবং আন্তর্জাতিক বাজারে প্রবেশের সুযোগ সৃষ্টির মাধ্যমে জাতীয় অর্থনীতিতে অবদান রাখছে সে সকল এসএমই উদ্যোক্তার সাফল্য গাঁথার চিত্র তুলে ধরা এবং সার্বজনীন স্বীকৃতি প্রদান করা।


দেশের পুরুষ ও নারী উদ্যোক্তাদের বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ তিনটি ক্যাটাগরিতে ছয়টি পুরস্কার প্রদান করা হয়ে থাকে। ক্যাটাগরিসমূহ:
ক) বর্ষসেরা মাইক্রো উদ্যোক্তা (পুরুষ-১, নারী-১)
খ) বর্ষসেরা ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা (পুরুষ-১, নারী-১) এবং
গ) বর্ষসেরা মাঝারি উদ্যোক্তা (পুরুষ-১, নারী-১)।

জাতীয় এসএমই উদ্যোক্তা পুরস্কার-২০১৬
জাতীয় এসএমই উদ্যোক্তা পুরস্কার-২০১৭